চারটি স্কিম নিয়ে শুরু হচ্ছে ‘সবার জন্য পেনশন’ কার্যক্রম

সর্বজনীন পেনশন কর্মসূচি (স্কিম) ১৭ আগস্ট উদ্বোধন হতে যাচ্ছে। উদ্বোধনের দিন থেকেই সর্বজনীন পেনশন কর্মসূচি উন্মুক্ত হবে সবার জন্য। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভার্চ্যুয়াল মাধ্যমে সর্বজনীন পেনশন কর্মসূচির উদ্বোধন করবেন।

অর্থ বিভাগ সূত্র জানায়, সমাজের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের কথা বিবেচনায় নিয়ে সর্বজনীন পেনশন কর্মসূচি চালু করা হচ্ছে। আপাতত চার শ্রেণির জনগোষ্ঠীর জন্য চার ধরনের পেনশন কর্মসূচি চালু করা হচ্ছে। এগুলোর নাম হচ্ছে প্রগতি, সুরক্ষা, সমতা ও প্রবাসী। এর মধ্যে বেসরকারি খাতের চাকরিজীবীদের জন্য ‘প্রগতি’, স্বকর্মে নিয়োজিত ব্যক্তিদের জন্য ‘সুরক্ষা’, প্রবাসী বাংলাদেশিদের জন্য ‘প্রবাসী’ এবং দেশের নিম্ন আয়ের জনগোষ্ঠীর জন্য ‘সমতা’ শীর্ষক কর্মসূচি চালু করা হবে।

সর্বজনীন পেনশন কর্মসূচি এমনভাবে করা হচ্ছে যাতে দেশের ১৮ থেকে ৫০ বছর বয়সী সব নাগরিকই এ ব্যবস্থার আওতায় আসতে পারবেন এবং ৬০ বছর বয়স থেকে তাঁরা আজীবন পেনশন পাবেন। শুরুর দিকে চিন্তা না থাকলেও পরে ৫০ বছরের বেশি বয়সীদেরও পেনশন কর্মসূচির আওতায় রাখার সুযোগ তৈরি করা হয়েছে। তাঁরা টানা ১০ বছর চাঁদা দেওয়ার পরই পেনশন সুবিধা পাবেন।

অর্থ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, ‘প্রগতি’ ও ‘সুরক্ষা’ কর্মসূচির আওতায় মাসিক চাঁদার হার নির্ধারণ করা হয়েছে ১ হাজার থেকে ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত। ‘প্রবাসী’ কর্মসূচিতে মাসিক চাঁদার হার ৫ হাজার থেকে ১০ হাজার টাকা। এই কর্মসূচিতে মার্কিন ডলার, ইউরো, কুয়েতি দিনার, সৌদি রিয়াল ইত্যাদি মুদ্রায় চাঁদা দিতে হবে।

প্রবাসী আয়ের (রেমিট্যান্স) মতো এ ক্ষেত্রেও সরকারের ২ দশমিক ৫ শতাংশ প্রণোদনা দেওয়ার বিষয়ে চিন্তা করা হয়েছিল। পরে অবশ্য তা বাদ দেওয়া হয়। কারণ, বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী বিনিয়োগের ক্ষেত্রে প্রণোদনা দেওয়া যায় না। ‘সমতা’ কর্মসূচিতে মাসিক চাঁদা ৫০০ টাকা। এ কর্মসূচিতে সমপরিমাণ অর্থাৎ ৫০০ টাকা করে চাঁদা দেবে সরকার।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top