আইন প্রণয়নে নেই আইনজীবীরা, এমন সংসদ কি আমরা চেয়েছিলাম

আলী ইমাম মজুমদার

দৈনিক প্রথম আলো সম্প্রতি অনুষ্ঠিত দ্বাদশ জাতীয় সংসদে নির্বাচিত সংসদ সদস্যদের (এমপি) পেশাগত দিক নিয়ে একটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

প্রতিবেদনটিতে ১৯৭৩ থেকে ২০২৪ পর্যন্ত নির্বাচনগুলোয় সংসদ সদস্যদের মধ্যে ব্যবসায়ী ও আইনজীবীদের হার নিয়ে তুলনামূলক অনুপাত উল্লেখ করা হয়েছে। উল্লেখ্য, এখানে ব্যবসায়ী বৃহৎ অর্থে ব্যবহার করে শিল্পপতিদেরও করা হয়েছে অন্তর্ভুক্ত। অবশ্য তাঁদের অনেকে দুই ধরনের কাজেই রয়েছেন। এতে ১৯৮৬, ১৯৮৮ ও ১৯৯৬–এর ফেব্রুয়ারিতে অনুষ্ঠিত নির্বাচনের ফলাফলকে বিবেচনায় নেওয়া হয়নি। বিবেচিত হয়েছে অবশিষ্ট ৯টি নির্বাচন।

এতে দেখা যায়, ১৯৭৩ সালের নির্বাচনে ব্যবসায়ী ও আইনজীবীর হার ছিল যথাক্রমে ১৮ ও ৩১ শতাংশ। আর ২০২৪–এ এসে তা ঠেকেছে যথাক্রমে ৬৭ ও ৮ শতাংশে। ২০২৪ সালের নির্বাচনে ১৯৯ জন ব্যবসায়ী নির্বাচিত হয়েছেন। পক্ষান্তরে ব্যবসায়ী, রাজনীতিবিদ ও কৃষিজীবীদের সংখ্যা যথাক্রমে ২৪, ২৬ ও ১৪ জন। ফলে প্রতিবেদনটিতে যৌক্তিকভাবে শিরোনাম দেওয়া হয়েছে রাষ্ট্রের নীতিনির্ধারণ ব্যবসায়ীদের ‘দখলে’।

উল্লেখ করা হয়েছে, জাতীয় সংসদে ব্যবসায়ীদের ক্রমবর্ধমান আধিপত্য রাজনীতিতে রাজনীতিবিদদেরই কোণঠাসা করে ফেলছে। বিবেচ্য প্রতিবেদন অনুসারে, ২০০১ সাল থেকে ব্যবসায়ীরা সংসদে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতায় পৌঁছেছেন। ২০০১, ২০০৮, ২০১৪, ২০১৮ ও ২০২৪ সালে যথাক্রমে তাঁদের অনুপাত দাঁড়ায় ৫৮, ৫৭, ৫৯, ৬২ ও ৬৭ শতাংশে।

ভারতবর্ষে ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি কর্তৃক সাম্রাজ্য স্থাপনের বিষয়ে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর আক্ষেপ করে লিখেছিলেন ‘বণিকের মানদণ্ড দেখা দিল পোহালে শর্বরী রাজদণ্ডরূপে’। সে কোম্পানি ধীরে ধীরে আধিপত্য বিস্তারে একপর্যায়ে পলাশী যুদ্ধ বিজয়ের মাধ্যমে রাজদণ্ড হস্তগত করে।

আমাদের দেশে রাষ্ট্রক্ষমতায় ব্যবসায়ীদের আধিপত্য বিস্তার আকস্মিকভাবে হয়নি। হয়নি কোনো বাঁকা পথে। রাজনৈতিক দলগুলোর নিয়ন্ত্রণ ও নির্বাচনের জন্য মনোনয়ন প্রদানের ভূমিকায় রাজনীতিবিদেরাই ছিলেন এবং অনেক ক্ষেত্রে এখনো রয়েছেন। তাহলে বলা অসংগত হবে না, তাঁরাই ক্রমবর্ধমান হারে সংসদে নিয়ে আসছেন ব্যবসায়ীদের। ফলে শ্রেণি হিসেবে রাষ্ট্রের নীতিনির্ধারণে ব্যবসায়ীরাই মূল ভূমিকায় রয়েছেন, এমনটা বলাই যৌক্তিক হবে।

বিস্তারিত পড়ুন

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top