আওয়ামী লীগের দুর্বলতাই বিএনপির শক্তি

মোনায়েম সরকার

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিজয়ী ৬২ জন স্বতন্ত্র সদস্য স্বতন্ত্র অবস্থানে থেকেই ভূমিকা পালন করবেন। ২৮ জানুয়ারি গণভবনে অনুষ্ঠিত বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এমন পরামর্শই দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, সংসদে ক্ষমতাসীন দলের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করার চেয়ে স্বতন্ত্র থাকায় লাভ আছে। কারণ, সরকারি দলের সংসদ সদস্যরা বিলের ওপর সমালোচনা বা দোষ-ত্রুটি তুলে ধরেন না। স্বতন্ত্র সদস্যরা এ কাজ ভালোভাবে করতে পারবেন। এতে দেশও লাভবান হবে।

জাতীয় সংসদে স্বতন্ত্র সদস্যদের ভূমিকা কি হবে তা নিয়ে যে আলোচনা চলছিল, তার একটি আপাত সমাধান হলো বলে মনে হচ্ছে। সংসদে বিরোধী দলের দুর্বল অবস্থানের কারণে সংসদ অকার্যকর বা প্রাণহীন হওয়ার যে আশঙ্কা ছিল, তা কিছুটা দূর হওয়ার আশা এখন কেউ কেউ করতেই পারেন।

দ্বাদশ জাতীয় সংসদের অধিবেশন বসছে আজ মঙ্গলবার (৩০ জানুয়ারি)। এবারের সংসদে ৬২ জন স্বতন্ত্র সংসদ সদস্যের মধ্যে ৫৮ জনই ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের বিভিন্ন স্তরের নেতা। নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন চেয়েছিলেন তারা। মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে নির্বাচনে জয়ী হয়েছেন। সংসদে তাদের ভূমিকা কী হবে- এ নিয়ে আলোচনা চলছিল। স্বতন্ত্র এমপিরাও দলের বিপক্ষে থাকতে চান না। প্রায় সবারই দলে ফেরার ইচ্ছা।

এই প্রেক্ষাপটে স্বতন্ত্র এমপিদের দলে বহাল থেকেই সংসদে স্বতন্ত্র ভূমিকা রাখার পরামর্শ দেন দলীয়প্রধান শেখ হাসিনা। ২৮ জানুয়ারি সন্ধ্যায় গণভবনে স্বতন্ত্র এমপিদের সঙ্গে বৈঠক করেন সংসদ নেতা। এ সময় দলীয় এমপিরা দলে ফেরার ইচ্ছার কথা তুলে ধরেন আওয়ামী লীগ সভাপতির কাছে। দলীয় প্রধানের কণ্ঠেও তাদের আবেগ-অনুভূতি প্রতিফলন লক্ষ করা গেছে। শেখ হাসিনা বলেন, আপনারা সবাই আমার। ডান হাত, বাম হাত- দুই হাতই আমার।

জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী লিটনের সঞ্চালনায় উপস্থিত ছিলেন স্বতন্ত্র ৬২ জন সংসদ সদস্য। নতুন সংসদের প্রথম অধিবেশনের আগে সংসদ নেতার সঙ্গে বৈঠকে দলীয় ৫৮ জন সংসদ সদস্যের কণ্ঠেই ছিল একই সুর। তারা দলে ফিরতে চান। কারণ বিএনপি ও সমমনাদের বর্জনের মধ্যে গত ৭ জানুয়ারির নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক করতে দলীয় প্রার্থীদের বিরুদ্ধে ভোটে দাঁড়াতে দলের কাউকে বাধা না দিয়ে উৎসাহিত করেছে আওয়ামী লীগ।

অনেক আসনেই নৌকার বিরুদ্ধে অন্য প্রতীক নিয়ে লড়াই করেন আওয়ামী লীগেরই নেতারা। ৪৬টি আসনে নৌকাকে হারতে হয় দলীয় স্বতন্ত্র প্রার্থীদের কাছে। রেকর্ড সংখ্যক স্বতন্ত্র প্রার্থীর জয় এবং সংসদে দ্বিতীয় বৃহত্তম দল জাতীয় পার্টির আসন সংখ্যা ১১টিতে নামার পর সংসদে বিরোধী দল কারা হবে, এ নিয়েও দেখা দেয় প্রশ্ন। তবে শেষ পর্যন্ত জাতীয় পার্টির নেতা জি এম কাদেরকে বিরোধীদলীয় নেতা এবং আনিসুল ইসলাম মাহমুদকে উপনেতা হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছেন স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী।

বিস্তারিত পড়ুন

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top