দলীয়ভাবে স্থানীয় সরকার নির্বাচন কি আওয়ামী লীগের ‘ভুল’ ছিল

মনজুরুল ইসলাম

৭ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা এখনো থামেনি। এরই মধ্যে স্থানীয় সরকার নির্বাচন নিয়ে কথা-বার্তা শুরু হয়েছে। আগামী মার্চ থেকে কয়েক ধাপে উপজেলা নির্বাচন করতে চায় নির্বাচন কমিশন—সংবাদমাধ্যমে এমন খবর এসেছে।

এরপর গত সোমবার (২২ জানুয়ারি) এক জরুরি বৈঠক করে উপজেলাসহ স্থানীয় সরকার নির্বাচনগুলোয় দলীয়ভাবে মনোনয়ন (নৌকা প্রতীক) না দেওয়ার কথা জানিয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। (প্রথম আলো, ২৩ জানুয়ারি ২০২৪)

স্থানীয় সরকার নির্বাচনগুলো আগে নির্দলীয়ভাবে বা দলীয় প্রতীক ছাড়াই হতো। আওয়ামী লীগ সরকারের আমলেই ২০১৫ সালে এটা পরিবর্তন করা হয়। এরপর থেকে এ নির্বাচনগুলো দলীয়ভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে। তাহলে আওয়ামী লীগ কেন এবার দলীয়ভাবে মনোনয়ন না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিল? ক্ষমতাসীনদের এ সিদ্ধান্ত কি এটাই প্রমাণ করে, দলীয়ভাবে স্থানীয় সরকার নির্বাচনের বিষয়টি ‘ভুল’ ছিল?

২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি একতরফা নির্বাচনের পর টানা দ্বিতীয় দফা সরকার গঠন করেছিল আওয়ামী লীগ।

এরপর দলটির তৎকালীন সাধারণ সম্পাদক প্রয়াত সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম প্রথমবারের মতো দলীয়ভাবে স্থানীয় সরকার নির্বাচনের প্রসঙ্গটি তুলেছিলেন। পরে দলটির শীর্ষ নেতাও এ বিষয়ে সায় দেন। (স্থানীয় নির্বাচনও দলীয়ভাবে চান শেখ হাসিনা, বিডিনিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম, ১ এপ্রিল ২০১৫)

দলীয়ভাবে স্থানীয় সরকার নির্বাচনের বিষয়টি শুরু থেকেই বিতর্ক তৈরি করেছিল। সেই সময় ক্ষমতাসীনদের পক্ষ থেকে যুক্তি দেওয়া হয়েছিল, বিশ্বের সব উন্নত দেশে দলীয়ভাবে স্থানীয় সরকার নির্বাচন হয়। তাই বাংলাদেশেও তেমনটা হওয়া উচিত। অপরদিকে বিএনপিসহ বেশ কিছু বিরোধী দল এর বিরোধিতা করেছিল। তাদের মতে এটা ছিল, ‘দুরভিসন্ধিমূলক’ এবং সরকারের এই সিদ্ধান্ত নিজ দলীয় নেতাদের জিতিয়ে আনার একটি কৌশল।

শুধু বিরোধী দলগুলো নয়, বেশ কিছু নাগরিক সংগঠনের পক্ষ থেকেও দলীয়ভাবে স্থানীয় সরকার নির্বাচনের ব্যাপারে নানারকম আশঙ্কার কথা বলা হয়েছিল; কিন্তু বিরোধী দল বা নাগরিক সমাজ—কারও কথাই তখন পাত্তা দেওয়া হয়নি। দলীয়ভাবে স্থানীয় সরকার নির্বাচনের জন্য আইন সংশোধন করা হয়।

বিস্তারিত পড়ুন

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top