রাজনীতির খেলায় পুলিশ কেন বিতর্কিত?

আমীন আল রশীদ

‘পুলিশ পেছনে লেগেছে, বাথরুমের ছাদ-খালের পাড় এখন আমাদের থাকার জায়গা।’

গত ২৪ জানুয়ারি দ্য ডেইলি স্টার অনলাইনের এই সংবাদ শিরোনাম দেখে কৌতূহল বেড়ে যায়। রাষ্ট্রের সবচেয়ে বড় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কেন একজন নাগরিকের ‘পেছনে’ লাগবে? নাগরিকের সুরক্ষা দেওয়াই তো তার কাজ। যদি সে অপরাধীও হয়, আইন অনুযায়ী তার বিচার হবে। পুলিশের বিরুদ্ধে এই ‘পেছনে লাগা’র অভিযোগ কেন উঠবে?

যাকে উদ্ধৃত করে এই সংবাদ শিরোনাম, তার নাম মো. বশির। বয়স ৫৫। বাড়ি ভোলা সদরে। হাইকোর্টে এসেছিলেন আগাম জামিন নিতে। সেখানে বসে তার সঙ্গে আলাপ হয় দ্য ডেইলি স্টার প্রতিবেদকের।

খবরে বলা হচ্ছে, গত ২৮ অক্টোবর রাজধানীতে বিএনপির সমাবেশকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট সহিংসতার পরে সারা দেশে বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে যে মামলা হয়েছে, সেরকমই একটি মামলার আসামি বশির। তিনি বিএনপির একজন কর্মী। যদিও তার দাবি, তিনি জানেন না তিনি কী অপরাধ করেছেন। তিনি এই মামলাকে ‘গায়েবি’ বলে অভিহিত করে বলেছেন, পুলিশের গ্রেপ্তার এড়াতে বাথরুমের ছাদ, সুপারি বাগান, খাল-বিলের পাড় এখন তাদের থাকার জায়গা।

ভোলা সদরে একটি ছোট দোকান চালাতেন বশির। কয়েক বছর আগে তার ব্রেন স্ট্রোক হয় এবং এখন তিনি চোখের সমস্যায়ও ভুগছেন। অথচ মামলার আসামি হওয়ার পরে ব্যবসা লাটে উঠেছে, শারীরিক অসুস্থতা নিয়েই পালিয়ে বেড়াতে হচ্ছে।

এর পরদিন ২৫ জানুয়ারি মানবজমিনের একটি খবরের শিরোনাম ‘তিনিও হাইকোর্টে এসেছিলেন’। শিরোনামের সঙ্গে একজন দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী বয়স্ক মানুষের ছবি। তার নাম মো. আলমগীর হোসেন মিলন। কোরআনের হাফেজ। মসজিদে আজান দেওয়ার কাজ করেন। ৫৫ বছর বয়সী এই ব্যক্তিও ককটেল বিস্ফোরণ মামলার আসামি। অভিযোগ, তিনি পুলিশের ওপর ককটেল হামলা চালিয়েছেন। এই মামলায় জামিন নিতে এসেছেন হাইকোর্টে।

বিস্তারিত পড়ুন

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top