ব্যর্থতার দায় আসছে বিএনপির শীর্ষ নেতৃত্বের ওপর

সরকারবিরোধী এক দফার আন্দোলনে ব্যর্থতার পর বিএনপির নেতা-কর্মীদের বড় একটি অংশের মধ্যে এখন মোটা দাগে দুটি বিষয় নিয়ে আলোচনা চলছে। একটি হচ্ছে, নির্বাচন বর্জনের সিদ্ধান্ত কতটা সঠিক ছিল বা বর্তমান বাস্তবতায় গণ-আন্দোলনের মাধ্যমে ক্ষমতার পরিবর্তন সম্ভব কি না। অন্যটি হচ্ছে, বিএনপির প্রধান নেতা তারেক রহমানের নেতৃত্বের সক্ষমতা ও দেশ-বিদেশে তাঁর গ্রহণযোগ্যতার প্রশ্ন।

বিএনপির নেতা-কর্মীদের মধ্যে দেশে-বিদেশে তারেক রহমানের গ্রহণযোগ্যতার প্রশ্নটি বেশি আলোচিত। দলটির অনেকে মনে করেন, সমাজের গুরুত্বপূর্ণ অংশ বা প্রভাবশালী মহলের মধ্যে তারেক রহমানের নেতৃত্ব নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে। তাঁর প্রতি পার্শ্ববর্তী দেশের মনোভাব ইতিবাচক নয়। যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা দেশগুলোও তাঁর ব্যাপারে কতটা ইতিবাচক, সেই প্রশ্নেও আলোচনা রয়েছে দলটিতে।

সরকারের দিক থেকে নানা চাপ ও প্রলোভন সত্ত্বেও এখন পর্যন্ত বিএনপি ভাঙেনি। তবে আন্দোলনে ব্যর্থতা নেতাদের পরস্পরের মধ্যে সন্দেহ-অবিশ্বাস বাড়িয়েছে। বিশেষ করে গত ২৮ অক্টোবরের পর দলে তিন ধরনের পরিস্থিতি তৈরি হয়। মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামসহ অনেক নেতা-কর্মী কারাবন্দী হন। কেন্দ্রীয় ও মাঠপর্যায়ের বড় অংশটি আত্মগোপনে যায়। রুহুল কবির রিজভীসহ অল্পসংখ্যক নেতা-কর্মীকে প্রকাশ্যে কর্মসূচিতে দেখা যায়।

বিস্তারিত পড়ুন

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top